17 Nov 2019

How Did The Tradition of Birthdays Begin?

জন্মদিনের ঐতিহ্য কিভাবে শুরু হয়েছিল?

Have you ever wondered where the celebration of birthdays started? In the simplest of terms, it’s a time for friends and family to come together and celebrate the anniversary of your birth. But there’s so much more to it than that. It’s been constantly evolving throughout, turning into what we know it to be today. This widely used tradition started somewhere and that’s what we are looking to uncover here today.

আপনি কি কখনও ভেবে দেখেছেন জন্মদিন উদযাপনটি কোথায় শুরু হয়েছিল? সহজ কথায়, এটি সেই সময় যখন বন্ধু এবং পরিবার একত্রিত হয়ে আপনার জন্মবার্ষিকী উদযাপন করে। তবে এর চেয়ে আরও অনেক কিছুই আছে। এটি ক্রমাগতভাবে বিকশিত হয়ে আমরা আজকে যেভাবে উদযাপন করি সেরূপে পরিণত হয়েছে। এই বহুল ব্যবহৃত ঐতিহ্যটি কোন এক জায়গায় শুরু হয়েছিল এবং আমরা আজ তা উন্মোচন করতে চাই।

We’ve pieced together the hypotheses of several historians, making this one huge piece of our culture a little bit more comprehensible.

আমরা আমাদের ঐতিহাসিকদের অনুমানকে একসাথে মিলিয়েছি, এটি আমাদের সংস্কৃতির এই বিশাল অংশটিকে আরও কিছুটা বোধগম্য করে তুলেছে।

Birthdays didn’t begin until calendars were created

ক্যালেন্ডার তৈরি না হওয়া পর্যন্ত জন্মদিন শুরু হয়নি

Early civilizations had no way to keep track of time other than by using the moon, sun, or some other important event. This made it difficult for them to pay attention to the anniversary of a person’s birth.

প্রারম্ভিক সভ্যতার কাছে চাঁদ, সূর্য বা অন্য কোনও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ব্যবহার না করে সময় হিসাবে রাখার উপায় ছিল না। এটি তাদের পক্ষে কোনও ব্যক্তির জন্মবার্ষিকীতে মনোযোগ দেওয়া কঠিন করে তুলেছিল।

As time went on, everyone realized that they all experienced the effects of aging, they just didn’t have a means to mark a special milestone for it.

সময়ের সাথে সাথে, সকলেই বুঝতে পেরেছিল যে তারা সকলেই বার্ধক্যের প্রভাবগুলি অনুভব করেছে, কেবলমাত্র এটির জন্য একটি বিশেষ মাইলফলক চিহ্নিত করার উপায় নেই।

Ancient people began taking note of the moon’s cycles that they began paying attention to the change in seasons as well. They also noticed this pattern repeated itself over and over again. They began marking these changes in time.

প্রাচীন লোকেরা চাঁদের চক্রে চিহ্নিত করতে শুরু করে এবং তারা ঋতু পরিবর্তনের দিকেও মনোযোগ দিতে শুরু করে।তারা লক্ষ্য করেছেন যে,এই চক্রটির বারবার পুনরাবৃত্তি হয়েছিল। তারা সময় মতো এই পরিবর্তনগুলি চিহ্নিত করতে শুরু করেছিল।

This is what bore the first calendars, which marked time changes and other special days. From this type of tracking system came the ability to celebrate birthdays and other significant events and anniversaries each year.

এটিই ছিল প্রথম ক্যালেন্ডার, যা সময় পরিবর্তন এবং অন্যান্য বিশেষ দিন চিহ্নিত করেছিল। এই ধরণের অনুসরণ(ট্র্যাকিং) পদ্ধতি থেকে প্রতি বছর জন্মদিন এবং অন্যান্য উল্লেখযোগ্য ঘটনা এবং বার্ষিকী উদযাপন করার ক্ষমতা আসে।

It all started with the Egyptians

এটি মিশরীয়দের দিয়েই শুরু হয়েছিল

Scholars who study the Bible say that the earliest mention of a birthday was around 3,000 B.C.E. and was in reference to a Pharaoh’s birthday. But further study implies that this was not their birth into the world, but their “birth” as a god.

বাইবেল অধ্যয়নকারী পন্ডিতরা বলেছেন যে , জন্মদিনের প্রথম দিকের উল্লেখ ছিল প্রায়  খ্রিস্টপূর্ব ৩,০০০ অব্দে এবং একটি ফেরাউনের জন্মদিনের প্রসঙ্গে ছিল। তবে আরও অধ্যয়ন থেকে বোঝা যায় যে, এটি পৃথিবীতে তাদের জন্ম নয়, ঈশ্বর হিসাবে তাদের "জন্ম" ছিল।

When Egyptian pharaohs were crowned in ancient Egypt, they were considered to have transformed into gods. This was a moment in their lives that became more important than even their physical birth.

প্রাচীন মিশরে যখন মিশরীয় ফেরাউনদের মুকুট দেওয়া হয়েছিল, তখন তারা দেবদেবীতে রূপান্তরিত হয়েছিল বলে মনে করা হত। এটি তাদের জীবনে এমন একটি মুহূর্ত ছিল যা তাদের শারীরিক জন্মের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে।

Pagans, such as the ancient Greeks, believed that each person had a spirit that was present on the day of his or her birth. This spirit kept watch and had a mystic relation with the god on whose birthday that particular individual was born.

প্রাচীন গ্রীকদের মতো পৌত্তলিকরা বিশ্বাস করত যে, প্রত্যেক ব্যক্তির একটি আত্মা থাকে যা তার জন্মের দিন উপস্থিত ছিল। এই আত্মা নজর রাখে এবং সেই ঈশ্বরের সাথে একটি রহস্যময় সম্পর্ক ছিল যার জন্মদিনে সেই নির্দিষ্ট ব্যক্তি জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

Birthdays first started as a form of protection

জন্মদিন প্রথমে সুরক্ষার উপায় হিসাবে শুরু হয়েছিল

It is assumed that the Greeks adopted the Egyptian tradition of celebrating the “birth” of a god. They, like many other pagan cultures, thought that days of major change, such as these “birth” days, welcomed evil spirits. They lit candles in response to these spirits almost as if they represented a light in the darkness. This implies that birthday celebrations started as a form of protection.

ধারণা করা হয় যে, গ্রীকরা কোন দেবতার "জন্ম" উদযাপনের মিশরীয় ঐতিহ্যকে গ্রহণ করেছিল। তারা অন্যান্য অনেক পৌত্তলিক সংস্কৃতিগুলির মতোই ভেবেছিল যে এই "জন্ম" দিনের মতো বড় পরিবর্তনের দিনগুলি, মন্দ আত্মাকে স্বাগত জানায়। তারা এই আত্মার পাল্টা জবাব হিসাবে মোমবাতি জ্বালিয়েছিল যেমন তারা অন্ধকারে কোন আলোকে উপস্থাপন করে। এটি বোঝায় যে জন্মদিন উদযাপনগুলি সুরক্ষার উপায় হিসাবে শুরু হয়েছিল।

In addition to candles, friends and family would gather around the birthday person and protect them from harm with good cheers, thoughts, and wishes. They would give gifts to bring even more good cheer that would ward off evil spirits. Noisemakers were also used to scare away the unwanted evil.

মোমবাতি ছাড়াও, বন্ধুবান্ধব এবং পরিবার জন্মদিনের ব্যক্তির চারপাশে জড়ো হয়ে ভাল উৎসাহ , চিন্তাভাবনা এবং শুভেচ্ছার মাধ্যমে তাদের ক্ষতি থেকে রক্ষা করত। তারা আরও ভাল প্রভাব এর জন্য এমন উপহার দিত যা মন্দ আত্মার হাত থেকে রক্ষা করে। অনাহূত অশুভ কে  ভয় দেখানোর জন্য শোরগোলকারীদেরও ব্যবহার করা হয়েছিল।

The ancient Romans were the first to celebrate the birth of the common “man

প্রাচীন রোমানরা প্রথম "সাধারণ" মানুষের জন্ম উদযাপন করেছিল

This seems to be the first time in history where a civilization celebrated the birth of non-religious figures. Regular Roman citizens would celebrate the birthdays of their friends and family members. The government, however, created public holidays in honor of more famous citizens.

মনে করা হয় ইতিহাসে এটি প্রথমবারের মতো কোন সভ্যতা অ-ধর্মীয় ব্যক্তির জন্ম উদযাপন করেছিল। সাধারণ রোমান নাগরিকরা তাদের বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের জন্মদিন উদযাপন করতেন। সরকার অবশ্য আরও বিখ্যাত নাগরিকদের সম্মানে সরকারি ছুটি তৈরি করেছিল।

Any Roman turning 50 years old would receive a special cake baked with wheat flour, olive oil, cheese, and honey. But an important thing to note is that only men would experience this birthday celebration. Female birthdays were not celebrated until about the 12th century.

যে কোন রোমান ৫০ বছর বয়সী হলে গমের আটা, জলপাই তেল, পনির এবং মধু দিয়ে বানানো একটি বিশেষ কেক পেতেন। তবে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় লক্ষণীয় হলো কেবল পুরুষরা এই জন্মদিন উদযাপনটি করতে পারতেন। প্রায় ১২ শতাব্দী পর্যন্ত মহিলাদের জন্মদিন পালন করা হয়নি।


BCS PRELIMINARY & WRITTEN

Learn from scratch to become a first class officer.


BANK JOBS

A huge collection of Bank Job Questions to guide you through.


NTRCA

Easy and simple way to succeed.


GOVT. JOBS

StudyPress has solutions of ALL previous govt job tests.


MBA ADMISSION TEST

Worried about Math and English? Try Studypress


CURRENT NEWS

Every Important News updates for Job Preparation.


MISTAKE LIST

Something you will find nowhere else, but you need the most.


ALL PREVIOUS QUESTION & SOLUTIONS

The test was held yesterday? Solution is here!!


Login Now